শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের কাছে সেন্ট্রাল মসজিদে বন্দুকধারী সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। মসজিদটিতে জুম্মার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন কিউই সফরে থাকা টাইগার দলের ক্রিকেটাররা। তবে নির্ধারীত সময়ের কিছু সময় পরে পৌঁছানোয় রক্ষা পেয়েছেন তামিম-মিরাজরা।

শনিবার অনুশীলনের পর সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলা শেষ করেই জুম্মার নামাজ আদায়ের জন্য ওভাল স্টেডিয়ামের অদূরবর্তী মসজিদ আল নুরে যাবে ক্রিকেটাররা। যেহেুত পূর্ব নির্ধারীত সময় বেলা ১.৩০ নামাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে তাই সেই অনুযায়ী কথা বার্তা চলতে থাকে সংবাদ সম্মেলনে।

তবে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে পাঁচ-ছয় মিনিট সময় বেশি ব্যয় করে ফেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কিংবা সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকরা। আর এই পাঁচ মিনিটই যেনো বাঁচিয়ে দিয়েছে পুরো বাংলাদেশ দলকে। কেননা পাঁচ মিনিট আগে মাঠ ছাড়লে কিংবা মসজিদে সময়মতো পৌঁছে গেলে হয়তো আর ফিরে পাওয়া যেতো না দেশের ক্রিকেটের প্রতিনিধিদের।

সংবাদ সম্মেলনে বেশি সময় লেগে যাওয়ায় মসজিদে পৌঁছতে প্রায় ১টা ৪০ মিনিট হয়ে যায়। আর এতেই যেনো বেঁচে যান তামিম, মুশফিক, তাইজুল, মিরাজরা। মসজিদে পৌঁছানোর পর তারা দ্রুত পায়ে মসজিদের দিকে এগাতে থাকেন। এ সময় সেখানকার স্থানীয় এক নারী ক্রিকেটারেদের পথ আটকে মসজিদে হামলার ঘটনার কথা জানান।

এরপর দ্রুত তারা টিম বাসে করে অনুশীলন মাঠের ড্রেসিংরুমে নিজেদের আবদ্ধ করেছেন। তবে দলের কোচিং স্টাফ এবং দুই তরুণ সদস্য লিটন কুমার দাস ও নাঈম হাসান রয়েছেন টিম হোটেলেই। পরিস্থিতি বুঝে তামিম মুশফিকরাও টিম হোটেলে চলে যান। আপাতত নিরাপদেই আছেন ক্রিকেটাররা।

উল্লেখ্য, সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় কিউইদের বিপক্ষে তৃতীয় বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে কবে নাগাদ ক্রিকেটাররা দেশে ফিরবেন তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।