নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদ আল নূর জাম্বারে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। অনুশীলনের পর জুম্মার নামাজ আদায় করতে ওই মসজিদে যাচ্ছিলেন তামিম ইকবাল, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলামরা।

মসজিদে ঢোকার ঠিক আগমুহূর্তে অজ্ঞাত এক নারী এসে তামিমদের সতর্ক করে জানান যে মসজিদের ভেতরে গোলাগুলি হচ্ছে, এখন ভেতরে যাওয়া ঠিক হবে না। ফলে কোন রকম বিপত্তি ছাড়াই ড্রেসিংরুমে ফিরে আসেন ক্রিকেটাররা। আপাতত সেখানেই আবদ্ধ আছেন তারা।

তবে দলের কোচিং স্টাফ এবং দুই তরুণ সদস্য লিটন কুমার দাস ও নাঈম হাসান রয়েছেন টিম হোটেলেই। তাদেরকে সেখানেই থাকতে বলে দিয়েছেন দলের টিম ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট। তিনি সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করেছেন দেশে বিসিবির কর্মকর্তাদের সঙ্গে।

এদিকে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভাল মাঠে আগামীকাল শনিবার (১৬ মার্চ) বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় টেস্ট হওয়ার কথা রয়েছে। বিসিবি’র প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, শনিবারের ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে কি না এই বিষয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

হামলার পর অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশন ও নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ কাউন্সিলের সঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের যোগাযোগ হয়েছে। এ ঘটনার পর তাদের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে ২টায় অস্ট্রেলিয়ান বংশোদ্ভূত একজন ও টরেন্টোর আরো একজন ওই মসজিদে বন্দুক নিয়ে হামলান চালায়। হামলায় ২৭ জন নিহতের দাবী করেছে স্থানীয় গণমাধ্যম ওটোগো।