ক্রিকেটের আইন প্রণেতা সংস্থা বলা যায় এমসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটিকে। গত সপ্তাহে বেঙ্গালুরুতে অনুষ্ঠিত হয় এক বৈঠক। সেই বৈঠকে ক্রিকেটে নতুন দুইটি আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। টেস্ট ক্রিকেটেও এবার ফ্রি হিট ও স্লো ওভার রেট কমাতে কাউন্টডাউন টাইম ক্লকের প্রস্তাব করেছে এ কমিটি।

টেস্ট ক্রিকেট ফ্রি হিট চালু করার প্রসঙ্গে এমসিসি জানিয়েছে আদর্শ বোলিং ও বোলারদের সতর্ক করতে জন্য ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির মতো টেস্টেও এমন ফ্রি-হিট চালুর কথা হোক। ফ্রি হিট অথাৎ কোনো বোলার যদি ‘নো’ বল করেন, তবে পরের বলে ফ্রি-হিট পান ব্যাটসম্যান। যে বলে স্বাভাবিক আউট (ক্যাচ বা লেগ বিফোর) থাকে না, ইচ্ছেমত শট নেয়া যায়।

এদিকে টেস্ট ক্রিকেটে খেলার গতি বাড়ানোর জন্য শট ক্লক সিস্টেম চালু করার প্রস্তাব দিয়েছে এমসিসি কমিটি। তাদের মতে, স্লো ওভার রেটের জন্য টেস্ট ক্রিকেটের গতি কমে যাওয়াই নাকি দর্শক হারানোর একটি কারণ।

এমসিসির দেওয়া প্রস্তাবে বোলারদের নতুন ওভার শুরু করার জন্য ঘড়ি দেখাবে ৪০ সেকেন্ড সময়। যদি নতুন ব্যাটসম্যান স্ট্রাইক নেয়, তাহলে সেটা বেড়ে দাঁড়াবে ৬০ সেকেন্ডে। আর যদি অন্য প্রান্তে বোলার পরিবর্তন হয়, তাহলে সময় দেওয়া হবে ৮০ সেকেন্ড। এর মাঝে যদি নতুন ওভার শুরু না হয়, তাহলে আম্পায়ার ফিল্ডিং করা দলের অধিনায়ককে সতর্ক করবেন।

এছাড়া একজন ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর অন্য ব্যাটসম্যান ক্রিজে আসার জন্য সময় নিদিষ্ট করে দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। এছাড়া ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমের (ডিআরএস) কারণে অনেক সময়ক্ষেপন হচ্ছে। এটিকে আরো দ্রুত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

রেড ডিউক বলে ক্রিকেট:

টেস্ট বিভিন্ন দেশে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন রকমের বল। যেমন কোকাবুরা বা রেড ডিউক। যেহেতু সামনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হবে তাই এমসিসির চাওয়া একটা নির্দিষ্ট বলেই হক টেস্ট ক্রিকেট। সে জন্য ‘রেড ডিউক’ বলই পছন্দ গ্যাটিংয়ের।