মঙ্গলবার আতলেতিকো মাদ্রিদের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করে বিশ্ব ফুটবলকে চমকে দিয়েছেন তিনি। স্বয়ং লিওনেল মেসি তাঁর পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত। অথচ সেই রোনালদো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে পারবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। প্রথম লেগে ২-০ গোলে হেরেছিল জুভেন্টাস। হারার পর আতলেতিকোর সমর্থকরা বিদ্রুপ করতে ছাড়েননি রোনালদোকে। তাই হারার পর ট্যানেলে যাওয়ার সময় রোনাল্ডো বলেছিলেন, ‘পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছি। আতলেতিকো সেই ট্রফি একবারও পায়নি।’

সেদিনের যাবতীয় জ্বালা যন্ত্রণা রোনালদো উগরে দেন তুরিনে। হ্যাটট্রিক চমকে দেন। গোটা বিশ্ব রোনালদোর এই পারফরম্যান্স দেখে যখন তাঁর বন্দনায় মুখরিত, সেই সময় ইতালির সংবাদপত্র গেজেত্তা দেলো স্পোর্ট জানিয়েছে, রোনাল্ডোকে বড় শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে। কারণ? তাঁর বিশ্রী অঙ্গভঙ্গি। আতলেতিকোর কাছে হারের পর সমর্থকদের বিদ্রুপের জবাব দিতে গিয়ে ম্যাচ জেতার পর কুঁচকির দু’পাশে হাত নিয়ে কুত্‍সিত আচরণ করেন রোনাল্ডো। যা ফুটবলের পরিপন্থী। পর্তুগিজ তারকা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কটা ম্যাচ খেলতে পারবেন না, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

জুভেন্টাস ফাইনালে উঠলে একটা ম্যাচ বসছেন, তা নিশ্চিত। তবে, অনেকে এও বলছেন, রোনালদো যে অঙ্গভঙ্গি করেছেন, তা দলের সতীর্থদের সামনে। দর্শক পরিবেষ্টিত স্টেডিয়ামে এমন অঙ্গভঙ্গিকে কেউ সমর্থন করতে পারছেন না। আতলেতিকোর কোচ দিয়েগো সিমোনেকে রোনালদোর বিশ্রী অঙ্গভঙ্গি প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চিত, ক্রিশ্চিয়ানো যা করেছে, তা আমিও প্রথম লেগের খেলায় করেছিলাম। তাই রোনালদোর অঙ্গভঙ্গিকে দোষ দেব কী করে?