গেল বিপিএল আসরে ২২ উইকেট নিয়ে নিজের পুরনো রূপটাই ফিরে এসেছিলেন তাসকিন। ছিলেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে। ভালো পারফরম্যান্সের সুবাদে বেশ কয়েক মাস পর সুযোগ পান জাতীয় দলে। সবকিছুই চলছিল পরিকল্পনা মতোই। তবে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বদলে যায় চিত্রপট।

চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে বাউন্ডারি ফিল্ডিং করার সময় পায়ের গোড়ালিতে চোট পান। সতীর্থদের কাঁধে ভর দিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়। হাসপাতালে স্কান করানোর পর জানা যায় চোট গুরুতর। তাই প্রায় দীর্ঘ ১৫ মাস পর জাতীয় দলের স্কোকাডে জায়গা পেয়েও ইনজুরিতে দলে ফেরার রাস্তাটা আবারো বাধাগ্রস্থ হলো।

তাসকিন বর্তমানে পায়ের ইনজুরি নিয়ে চার থেকে ছয় সপ্তাহের বিশ্রাম রয়েছেন। হাঁটা চলা সম্পূর্ণটাই নির্ভর করছে ক্রাচে ভর করে। একটি সংবাদ মাধ্যমের কাছে নিজের ইনজুরির শেষ অবস্থার কথা জানান তিনি।
তাসকিন বলেন, ডাক্তার আমাকে কয়েক সপ্তাহের বিশ্রাম দিয়েছেন। বলেছেন আগামী এপ্রিলের ১ তারিখ পর্যন্ত বিশ্রাম নেওয়ার জন্য। এর আগে যেন কোনভাবেই খেলায় অংশ না নেই। এখন কিছুটা ভালো আছি তারপরও এখন ক্রাচে ভর করে হাঁটতে হচ্ছে।

এদিকে ছয় সপ্তাহের বিশ্রামের কারণে শুধু নিউজল্যান্ড সফরই নয় ছিটকে গেছেন ঘরোয়া লিগের সবচেয়ে জনপ্রিয় আসর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ থেকে। এবারের প্রিমিয়ার লিগ হবে দুইটি ফরম্যাটে। যেখানে ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চ পর্যন্ত হবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। এরপর ৭ মার্চ থেকে ১২টি দল নিয়ে শুরু ওয়ানডে ফরম্যাটে। যেহেতু এপ্রিলের ১ তারিখের আগে খেলায় ফিরতে পারবেন না তাসকিন। তাই প্রিমিয়ার লিগে খেলতে না পারার কষ্টাও তার মধ্যে দানা বেঁধেছে।

তাসকিন বলেন, প্রিমিয়ার লিগ শুরু হতে যাচ্ছে কয়েকদিন পরেই কিন্তু আমি অংশ নিতে পারছি না তার জন্য খুব খারাপ লাগছে। মনটাও ভালো নেই। আমার চিকিৎসক এপ্রিল পর্যন্ত বিশ্রাম নিতে বলেছেন। আরও এক মাস বিশ্রামে থাকতে হবে আমাকে।